1. admin@muktijoddhatv.xyz : admin :
  2. mainadmin@muktijoddhatvonline.com : mainadmin :
শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৭:৫৪ পূর্বাহ্ন

ফরিদপুরে সাপের কামড়ে তিনজনের মৃত্যু, কোনো হাসপাতালে নেই অ্যান্টিভেনম।

মোঃ রাজু , আলফাডাঙ্গা উপজেলা প্রতিনিধি
  • Update Time : শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০২৩
  • ৪৭ Time View

ফরিদপুরে সাপের কামড়ে তিনজনের মৃত্যু, কোনো হাসপাতালে নেই অ্যান্টিভেনম।

বর্ষা মৌসুমে ফরিদপুরের বিভিন্ন স্থানে বেড়েছে সাপের উপদ্রব। বিশেষ করে বিষধর রাসেল ভাইপারেরও দেখা মিলছে। গত দুইদিনে জেলায় বিষাক্ত সাপের কামড়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

নিহতরা হলেন সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের হাট গোবিন্দপুর গ্রামের নুরজাহান বেগম (৫৫), আলফাডাঙ্গা উপজেলার বানা ইউনিয়নের রুদ্রবানা গ্রামের নেপুর মোল্লার ছেলে ওয়াজ কুরুনী (২১) ও বোয়ালমারী উপজেলার পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের ভাবখণ্ড গ্রামে বর্ষণ মহন্ত (১১)।
নিহতের স্বজনরা জানান, সাপে কাটার পর তাদের তিনজনকেই ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। কিন্তু অ্যান্টিভেনম না থাকায় তা রোগীদের দেওয়া যায়নি।
গত জুন মাস থেকে জেলার কোনো হাসপাতাল বা স্বাস্থ্যকেন্দ্রেই অ্যান্টিভেনমের সরবরাহ নেই। বিষাক্ত রাসেল ভাইপারসহ গোখরা সাপের কামড়ে আক্রান্ত রোগী এলেও অনেকটা বিনা চিকিৎসাতেই তাদের প্রাণহানি ঘটছে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) ভোরে আলফাডাঙ্গা উপজেলায় পাট কাটতে গিয়ে বিষাক্ত সাপের কামড়ে আহত হন কলেজছাত্র মো. ওয়াজ কুরুনী। স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. বাবার আলী জানান, সাপের কামড়ে আহত হওয়ার পর প্রথমেই ওয়াজ কুরুনীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়, কিন্তু সেখানে কোনো অ্যান্টিভেনম না থানায় ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেও অ্যান্টিভেনম না থাকায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলেও সেখানে তার মৃত্যু হয়।
এর আগে বুধবার দুপুরে বোয়ালমারী উপজেলার পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের ভাবখণ্ড গ্রামে বাড়িতে থাকা মাটির গর্তে পা গেলে বিষধর সাপ বর্ষণ মহন্তকে কামড় দেয়। তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে নেওয়া হয়। অ্যান্টিভেনম না থাকায় পরে সে মারা যায়।

একইদিন সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের হাট গোবিন্দপুর গ্রামের নুরজাহান বেগম বাড়ির পাশ থেকে খড় আনতে গিয়ে সাপে কামড়ে আহত হন। নুরজাহান বেগমের ভাই চুন্নু মোল্লা জানান, ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসকরা বলেন, তাদের কাছে কোনো ওষুধ নেই। পরে তিনি মারা যান।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024 Coder Boss
Design & Develop BY Coder Boss