1. admin@muktijoddhatv.xyz : admin :
  2. mainadmin@muktijoddhatvonline.com : mainadmin :
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন

প্রজাতন্ত্রের অন্যান্য বিভাগের ন্যায় শিক্ষা বিভাগে কর্মরত শিক্ষক ও কর্মচারীদের ছুটি ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার মধ্যে সমতা থাকা বাঞ্ছনীয়”

স্টাফ রিপোর্টার, মুক্তিযোদ্ধা টেলিভিশন
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২৪
  • ২১ Time View

“প্রজাতন্ত্রের অন্যান্য বিভাগের ন্যায় শিক্ষা বিভাগে কর্মরত শিক্ষক ও কর্মচারীদের ছুটি ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার মধ্যে সমতা থাকা বাঞ্ছনীয়”

মোঃ ওমর ফারুক

সরকার জাতির বৃহত্তর স্বার্থ মাথায় (বিবেচনায়) রেখে কোন (মহামারি করোনা বা তীব্র তাপদাহ বা অতিবৃষ্টি) প্রেক্ষাপটে বিদ্যালয়ে বন্ধ বা খোলা রাখবেন, সেটা সরকারের এখতিয়ার। এ ব্যাপারে প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োজিত একজন গণকর্মচারী হিসেবে সরকারের তথা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত মানতে আমরা বাধ্য!

তবে প্রজাতন্ত্রের অন্যান্য গণকর্মচারীদের ন্যায় শিক্ষা বিভাগে কর্মরত গণকর্মচারী হিসেবে আমরাও সমান তথা একই রকম সুবিধা লাভের অধিকার সংরক্ষণ করি। অর্থাৎ অন্যরা যেমন সপ্তাহে দুই দিন (শুক্র ও শনিবার) ছুটি ভোগ করেন, আমাদেরও একই ভাবে দুই দিন ছুটি ভোগের অধিকার রয়েছে।

বাংলাদেশের বিচারবিভাগ এবং শিক্ষা বিভাগ যেহেতু ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্ট হিসেবে বিবেচিত সেহেতু বিচার বিভাগের ন্যায় শিক্ষা বিভাগের গেজেটভুক্ত সকল ছুটিও যথা নিয়মে ভোগ করার (যদিও পরীক্ষার খাতা দেখা বা মূল্যায়ন করা সহ নানাবিধ কাজেই ছুটির সময় গুলো অতিক্রান্ত হয়ে থাকে) সুযোগ ও যথারীতি থাকতে হবে। আর যদি সেটা না করা হয় অর্থাৎ ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্ট হিসেবে আমাদের নির্ধারিত গেজেটভুক্ত ছুটি সমূহ যেমন গ্রীষ্মকালীন অবকাশ, শীতকালীন অবকাশ, মাহে রমজান ও দুই ঈদের এবং দুর্গাপূজার ছুটি ইত্যাদি কর্তন অথবা বাতিল করে ওই সময়ে ক্লাস পরিচালনা সহ অন্যান্য দায়িত্ব পালনে বাধ্য করা হয়; তবে অবশ্যই আমাদেরকে (শিক্ষা বিভাগ) নন ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্ট হিসেবে ঘোষণা করতে হবে!

উল্লেখ্য,

ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্ট এর অন্তর্ভুক্ত থাকায় শিক্ষা বিভাগে কর্মরত শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ পেনশনার হিসেবে আর্থিক সুবিধা অনেক কম পেয়ে থাকেন! বিশেষ করে শান্তি বিনোদন ছুটি ভোগের বিষয়টি, এর পাশাপাশি লামগ্রান্ড এর হিসাব সহ অন্যান্য কয়েকটি ক্ষেত্রে আর্থিক সুবিধা আশ্চর্যজনক ভাবে কম হয়ে থাকে! এটা একজন শিক্ষক-কর্মকর্তা বা কর্মচারী অবসরে যাওয়ার সময়েই সঠিকভাবে উপলব্ধি করতে পারেন!

প্রকৃত অর্থে রাষ্ট্রের পলিসির বাইরে আমরা কোন কিছু দাবি যেমন করতে পারি না, করছি না এবং করবোও না; কিন্তু আমাদের বিদ্যমান অধিকার সংরক্ষণের বিষয়টি তো আমাদের দেখতে হবে, তাই না?!

আমাদেরকে ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্টের তকমাটা দিয়ে রাখবেন (প্রলেপ হিসেবে) অন্যদিকে ভ্যাকেশন ভোগ করার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করবেন বারবার! আবার দেশের জনগণের একটি অংশ প্রকৃত তথ্য না জেনে বা আমাদেরকে নিয়ে ট্রল করবেন, আমাদের সম্মান হানি হয় এমন কথাবার্তা বলে আমাদের সামাজিকভাবে হেয় করতে থাকবেন; ওদিকে অবসরের সময় আমরা আর্থিক সুবিধা কম পেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হবো- এটা তো হতে পারে না! পারে কি?

সুতরাং

সাপ্তাহিক ছুটির ব্যাপারে অন্য বিভাগের ন্যায় শিক্ষা বিভাগের ছুটির সমতা নিশ্চিত করতে হবে অর্থাৎ শুক্র ও শনিবারের ছুটি নিরবিচ্ছিন্নভাবে নিশ্চিত করতে হবে এবং ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্ট হিসেবে আমাদের প্রাপ্য গেজেটভুক্ত ছুটি কর্তন বা বাতিল করলে ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্টের তকমা তুলে দিয়ে নন-ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্ট ঘোষণা করতে হবে।

লেখক:

মোঃ ওমর ফারুক

সাংগঠনিক সম্পাদক ও মুখপাত্র
সরকারি মাধ্যমিক স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ (স্বাশিপ)
কেন্দ্রীয় কমিটি।

সাধারণ সম্পাদক
বাংলাদেশ সরকারি মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি (বাসমাশিস) খুলনা জেলা শাখা, খুলনা।
ইমেইল: omurfaruknghs12@gmail.com
মোবাইল নম্বর: ০১৭১৬৩৬৩১১০

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024 Coder Boss
Design & Develop BY Coder Boss